স্বাস্থ্যবীমার পরিসর বাড়ালো ভারত


Published: 2019-06-16 18:08:37 BdST

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক: ভারতে স্বাস্থ্যবীমা সুবিধা পাওয়ার পরিসর বেড়েছে। সরকারি নথিভুক্ত যে কোনও হাসপাতালে রোগীদের বৈধ স্বাস্থ্যবীমা থাকলে তার ক্লেইম মেটাতে বাধ্য থাকবে বীমা সংস্থা। সরকারি রেজিস্টার্ড হাসপাতালে চিকিৎসা করালে বীমা কোম্পানিগুলোকে এ সুবিধা দিতে হবে, এক রায়ে এ কথা জানিয়েছে দিল্লি হাইকোর্ট।

এর আগে স্বাস্থ্যবীমা এবং থার্ড পার্টি অ্যাডমিনিস্ট্রেটর (টিপিএ) সংস্থাগুলি শুধুমাত্র তাদের কাছে নথিভুক্ত হাসপাতালে চিকিৎসা করানো হলে তবেই স্বাস্থ্যবীমার ক্লেইমের টাকা মিটিয়ে থাকতো। কিন্তু দিল্লি হাইকোর্টের এই রায়ের পর আর সেই নিয়ম প্রযোজ্য হবে না। এবার সরকারি নথিভুক্ত যে কোনও হাসপাতালে বৈধ স্বাস্থ্যবীমা নিয়ে চিকিৎসা করালে ক্লেইমের টাকা মেটাতে বাধ্য থাকবে বীমা সংস্থা এবং টিপিএগুলো।

দিল্লি হাইকোর্ট রায়ে জানিয়েছে, কোনও রোগীর কাছে বৈধ স্বাস্থ্যবীমা থাকলেই তিনি মেডিক্লেম এবং ক্যাশলেস সেবা পাবেন এবং জেনারেল ইন্স্যুরেন্স পাবলিক সেক্টর অ্যাসোসিয়েশন (জিপসা), অর্থাৎ রাষ্ট্রায়ত্ত স্বাস্থ্যবীমা সংস্থাগুলোর হাসপাতালগুলোকে তাদের কাছে নথিভুক্তির জন্য চাপ দিতে পারবে না।

চোখের চিকিৎসার ক্ষেত্রে বর্তমান নির্দেশিকা জারি করা হলেও জিপসা-র নির্দেশিকা এবং ‘নেটওয়ার্ক হাসপাতালগুলোর’ সরকারি নথিভুক্ত হাসপাতালকে বাইরে রাখার বিষয়টিতে ত্রুটি খুঁজে পেয়েছে দিল্লি হাইকোর্ট। আর সে কারণে অন্যান্য চিকিৎসার ক্ষেত্রেও এই নিয়ম প্রযোজ্য হতে পারে।

গত ৩১ মে এই অন্তর্বর্তী রায় দিয়েছে দিল্লি হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি রাজেন্দ্র মেনন এবং বিচারপতি ব্রিজেশ শেঠির বেঞ্চ। স্বাস্থ্যবীমা ক্ষেত্রে সংস্থাগুলোর ভূমিকা নিয়ে নিয়মিত খোঁজখবর না নেওয়ায় বীমা নিয়ামক সংস্থাকেও কাঠগড়ায় তোলা হয়েছে। কেন্দ্র বা রাজ্য সরকারের কাছে নথিভুক্ত হাসপাতালে চিকিৎসার ক্ষেত্রে বীমা সংস্থাগুলিকে সংশ্লিষ্ট বীমাকারীর স্বাস্থ্যবীমার ক্লেইম দিতে হবে বলে নির্দিষ্ট করে জানিয়েছে দিল্লি হাইকোর্ট।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

সম্পাদক ও প্রকাশক
মোস্তাফিজুর রহমান টুংকু সম্পাদকীয় কার্যালয়
৫৩ মডার্ন ম্যানসন, মতিঝিল সি/এ, লেভেল # ১১, স্যুট # ৬, ঢাকা-১০০০।
ফোন: ০২ ৯৫১৪৮৭২, ইমেইল: insurancenewsbd@gmail.com