বিব্রত ডেল্টা লাইফ

নিজস্ব প্রতিবেদক: লাইফ বীমা কোম্পানির ব্যবস্থাপনা ব্যয় বাড়ানোর বিষয়ে মতামত দিতে রাজি নয় শীর্ষ স্থানীয় প্রতিষ্ঠান ডেল্টা লাইফ ইন্স্যুরেন্স। কোম্পানিটির মূখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা আদিবা রহমান এ বিষয়ে মন্তব্য করতে বিব্রত বোধ করছেন বলে জানিয়েছেন কোম্পানির জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. মহিবুর রহমান।  

লাইফ বীমা কোম্পানির ব্যবস্থাপনা ব্যয় হার নির্ধারণে উদ্যোগ নিয়েছে বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ (আইডিআরএ) । প্রবিধানমালাটি চূড়ান্ত করতে এ বিষয়ে মতামতও চেয়েছে নিয়ন্ত্রণক সংস্থাটি। খসড়া প্রবিধানে আগের তুলনায় প্রথম বর্ষ প্রিমিয়ামে সর্বোচ্চ ৩ শতাংশ এবং নবায়নে প্রিমিয়ামে সর্বোচ্চ ৫ শতাংশ ব্যয় বাড়ানো হয়েছে।

প্রস্তাবিত প্রবিধানে লাইফ বীমা কোম্পানির ব্যবস্থাপনা ব্যয় বাড়ানোর যৌক্তিকতা বিষয়ে শীর্ষস্থানীয় ব্যক্তিদের মতামত তুলে ধরার উদ্যোগ নেয় ইন্স্যুরেন্সনিউজবিডি। এরই ধারাবাহিকতায় ডেল্টা লাইফ ইন্স্যুরেন্স এর মূখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) আদিবা রহমানের কাছে এ বিষয়ে মতামত চাওয়া হয়।

গত ২০ সেপ্টেম্বর ডেল্টা লাইফের মূখ্য নির্বাহী আদিবা রহমানের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়। এ সময় তিনি বলেন, "আপনি কোশ্চেনিয়ার পাঠান আমি লিখে দিব।" কোম্পানির পিআরডি'র হেড মহিবুর রহমানের কাছে ই-মেইলে কোশ্চেনিয়ার পাঠাতে বলেন। এর প্রেক্ষিতে কোশ্চেনিয়ার পাঠানো হলে তিনি কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি, বিব্রত বোধ করছেন বলে জানিয়েছেন কোম্পানিটির পিআরডি হেড।

খসড়া প্রবিধানে বলা হয়েছে, প্রথম ৫ বছর বীমা কোম্পানিগুলো প্রথম বর্ষ প্রিমিয়াম আয়ের ৯৮ শতাংশ ও নবায়ন প্রিমিয়ামের ২৫ শতাংশ ব্যয় করতে পারবে। ষষ্ঠ থেকে দশম বছরে প্রথম বর্ষ প্রিমিয়ামের ৯৭ শতাংশ ও নবায়নের ২২ শতাংশ খরচের সুযোগ রাখা হয়েছে।

আর দশম বছর পর ব্যবসা বলবৎ থাকলে প্রথম বর্ষ প্রিমিয়ামের ক্ষেত্রে ১ থেকে ১০০ কোটি টাকার ৯৩ শতাংশ খরচ করতে পারবে বীমা কোম্পানিগুলো। আর ১০১ থেকে ৫০০ কোটি টাকা প্রিমিয়ামের ৯২ শতাংশ এবং ৫০১ থেকে তদুর্ধ টাকার প্রিমিয়ামের ৯১ শতাংশ খরচ করতে পারবে।

তবে নবায়ন প্রিমিয়ামের ক্ষেত্রে বলা হয়েছে, কোম্পানির ব্যবসা শুরুর দশম বছর পর থেকে নবায়ন প্রিমিয়ামের ২০ শতাংশ ব্যবস্থাপনা ব্যয় করতে পারবে।