মানসিক রোগীর সেবায় ভারতে ১১০ বীমা পরিকল্প


Published: 2019-08-28 17:35:43 BdST

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক: মানসিক রোগীদের বীমা কভারেজ দিকে ভারতে ১১০টি পরিকল্প চালু রয়েছে। ২০১৮ সালের ১৬ আগস্ট থেকে এসব বীমা পলিসি অনুমোদন দিয়েছে দেশটির বীমা খাতের নিয়ন্ত্রক সংস্থা ইন্স্যুরেন্স রেগুলেটরি এন্ড ডেভেলপমেন্ট অথরিটি (আইআরডিএ) ।

২০১৮ সালের ২৯ মে “মেন্টাল হেলথ কেয়ার অ্যাক্ট, ২০১৭” কার্যকরের মাধ্যমে মানসিক রোগের বীমা কভারেজ দেয়া প্রতিটি কোম্পানির জন্য বাধ্যতামূলক করা হয়। দেশটির প্রথম নারী অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারাম সম্প্রতি লোকসভায় এ তথ্য দেন।

মেন্টাল হেলথ কেয়ার অ্যাক্টে, ২০১৭ –তে বলা হয়েছে, শারীরিক অসুস্থতার জন্য প্রচলিত স্বাস্থ্য বীমা কভারেজের মতোই মানসিক রোগের বীমা কভারেজ প্রদান করতে হবে।

সরকারি খাতের নন-লাইফ বীমা কোম্পানিগুলো জানিয়েছে, ২০১৮ সালের পর থেকে বিভিন্ন বীমা পণ্যেল মাধ্যমে দেশজুড়ে প্রায় এক লাখ ব্যক্তিকে মানসিক রোগের বীমা কভারেজ প্রদান করেছে।

২০১৮ সালের আগস্টে একটি সার্কুলার জারি করে বীমা কোম্পানিগুলোকে মেন্টাল হেলথ কেয়ার অ্যাক্ট, ২০১৭’র বিধান মেনে চলার নির্দেশ দেয় দেশটির বীমা খাতের নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইআরডিএ।

শারীরিক অসুস্থতায় যেভাবে চিকিৎসা সেবা দেয়া হয় তেমনি মানসিক রোগের ক্ষেত্রেও চিকিৎসা সেবা দিতে বীমা কোম্পানিগুলোকে নির্দেশনাও দেয়া হয় ওই সার্কুলারে।

মানসিক রোগীদের সাধারণ সমস্যা ক্লিনিক্যাল ডিপ্রেশন’র ক্ষেত্রেও কভারেজ দেয় মেন্টাল হেলথ ইন্স্যুরেন্স। ওষুধ ও হাসপাতালে ভর্তি ছাড়াও পেশাদার মনোবিজ্ঞানী বা চিকিৎসকের মাধ্যমে মানসিক রোগীদের থেরাপি প্রদান এই বীমার আওতায়।

মানসিক রোগের ক্ষেত্রে সাধারণ চিকিৎসা হচ্ছে থেরাপি। একেকবার থেরাপি দিতে ১ হাজার ৫শ’ থেকে ২ হাজার রুপি খরচ হয়। এ ছাড়াও মেডিকেল ইন্স্যুরেন্স পলিসিতে থেরাপি সুবিধা প্রযোজ্য নয়। (সূত্র: মানি কন্ট্রোল)

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

সম্পাদক ও প্রকাশক
মোস্তাফিজুর রহমান টুংকু সম্পাদকীয় কার্যালয়
৫৩ মডার্ন ম্যানসন, মতিঝিল সি/এ, লেভেল # ১১, স্যুট # ৬, ঢাকা-১০০০।
ফোন: ০২ ৯৫১৪৮৭২, ইমেইল: insurancenewsbd@gmail.com