সকল শিল্প-প্রতিষ্ঠানে বাধ্যতামূলক গ্রুপ বীমা বাস্তবায়নের তাগিদ

নিজস্ব প্রতিবেদক: পুঁজিবাজার সংশ্লিষ্ট সকল প্রতিষ্ঠান এবং শতাধিক শ্রমিক কাজ করে এমন শিল্প-প্রতিষ্ঠানে বাধ্যতামূলকভাবে গ্রুপ বীমা গ্রহণের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার আবেদন জানিয়েছে বাংলাদেশ ইন্স্যুরেন্স এসোসিয়েশেন (বিআইএ) ।

এ সংক্রান্ত একটি চিঠি গত ১৯ জুলাই বীমা খাতের নিয়ন্ত্রক সংস্থা বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ (আইডিআরএ)’র কাছে পাঠিয়েছে বীমা মালিকদের এই সংগঠন। চিঠিতে স্বাক্ষর করেছেন সংগঠনের প্রেসিডেন্ট শেখ কবির হোসেন।  

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে সজীব গ্রুপ অব কোম্পানির অঙ্গপ্রতিষ্ঠান হাসেম ফুডসের ৬ তলা কারখানায় গত ৮ জুলাই ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে ৫২ শ্রমিকের মর্মান্তিক মৃত্যুর ঘটনার দৃষ্টান্ত তুলে ধরে এই চিঠি পাঠিয়েছে বাংলাদেশ ইন্স্যুরেন্স এসোসিয়েশেন।

সংগঠনটি বলছে, অগ্নিকাণ্ডে মৃত শ্রমিকদের জীবনের নিরাপত্তার জন্য বাংলাদেশ শ্রম আইনের ধারা ৯৯(১) মতে কোন গ্রুপ বীমা করা ছিল না। অথচ শিল্প কল-কারখানায় সকল শ্রমিকের (ন্যূনতম একশ’ শ্রমিক থাকলে) জন্য গ্রুপ বীমা থাকা বাধ্যতামূলক।

এক্ষেত্রে শ্রমিকদের গ্রুপ বীমা করা থাকলে নিহত এসব শ্রমিকের পরিবার ক্ষতিপূরণ পাওয়ার জন্য যোগ্য বলে বিবেচিত হতো।

বাধ্যতামূলক গ্রুপ বীমা চালুর বিষয়ে শ্রম আইনের ধারা ৯৯(১) তুলে ধরেছে বিআইএ। ওই ধারায় বলা হয়েছে, যে সকল প্রতিষ্ঠানে অন্যুন ১০০ জন স্থায়ী শ্রমিক কর্মরত রয়েছেন, সেইখানে মালিক প্রচলিত বীমা আইন অনুযায়ী গ্রুপ বীমা চালু করবেন।

অন্যদিকে পুঁজিবাজার সংশ্লিষ্ট এবং তালিকাভুক্ত অন্যান্য সকল প্রতিষ্ঠানে কর্মরত সকলের স্বাস্থ্য ও জীবনের সুরক্ষা সংক্রান্ত বীমা নিশ্চিত করার বিষয়ে গত ১২ মে নির্দেশনা জারি করেছে বাংলাদেশ সিকিউরিটি এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) ।

এ প্রেক্ষিতে শ্রম আইনের ধারা ৯৯(১) এবং বিএসইসি’র নির্দেশনা বাস্তবায়নে জন্য সংশ্লিষ্ট সংস্থা ও মন্ত্রণালয়ের সাথে আলোচনার মাধ্যমে গ্রুপ বীমা বাধ্যতামূলকভাবে গ্রহণের বিষয়ে আইডিআরএ’কে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নেয়ার আবেদন জানিয়েছে বিআইএ।