বীমা অফিস খোলা রাখার বিষয়ে সিদ্ধান্ত রোববার

নিজস্ব প্রতিবেদক: করোনার সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে ১ জুলাই (বৃহস্পতিবার) সকাল ছয়টা থেকে ৭ জুলাই মধ্যরাত পর্যন্ত সারা দেশে আধা-সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত ও বেসরকারি অফিস বন্ধ রাখার বিষয়ে আজ বুধবার মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে।

কিন্তু ব্যবসা-বাণিজ্যের লেনদেন চালু রাখার জন্য সীমিত পরিসরে ব্যাংক খোলা রাখার হবে। তাই বীমা অফিস চালু রাখার বিষয়ে আগামী রোববার সিদ্ধান্ত নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ (আইডিআরএ)'র নির্বাহী পরিচালক (যুগ্মসচিব) ও মুখপাত্র এস এম শাকিল আখতার।

ইন্স্যুরেন্সনিউজবিডি’কে তিনি জানান, ব্যবসা-বাণিজ্যের লেনদেন চালু রাখার জন্য সরকার ব্যাংক চালু রাখবে। ব্যাংকের আমদানি-রপ্তানিতে এলসি খোলার সঙ্গে বীমার বিষয়টি জড়িত। তাই আমাদেরও সীমিত পরিসরে অফিস খোলা রাখতে হবে। বীমা অফিস কিভাবে এবং কত ঘণ্টা খোলা রাখা হবে সে বিষয়ে কর্তৃপক্ষের সদস্যগণ মিটিং এর মাধ্যমে আগামী রোববার সিদ্ধান্ত নিয়ে জানাতে পারবে।

করোনা কঠোর নিয়ন্ত্রণের সময় যা বন্ধ থাকবে: সড়ক, রেল ও নৌপথে গণপরিবহনসহ সব ধরনের যন্ত্রচালিত যানবাহন চলাচল, অভ্যন্তরীণ উড়োজাহাজ চলাচল, শপিং মল, মার্কেটসহ সব দোকানপাট, সব পর্যটনকেন্দ্র, রিসোর্ট, কমিউনিটি সেন্টার ও বিনোদন কেন্দ্র, জনসমাবেশ হয়—এ ধরনের সামাজিক, রাজনৈতিক ও ধর্মীয় আচার-অনুষ্ঠান, অতি জরুরি প্রয়োজন (ওষুধ-নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্য ক্রয়, চিকিৎসাসেবা, মৃতদেহ দাফন/ সৎকার) ছাড়া কেউ কোনোভাবে ঘরের বাইরে বের হতে পারবে না। নির্দেশ অমান্যকারীর বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

যা খোলা থাকবে: আইনশৃঙ্খলা ও জরুরি পরিষেবা (কৃষিপণ্য- উপকরণ- খাদ্যশস্য- খাদ্যদ্রব্য পরিবহন, ত্রাণ বিতরণ, স্বাস্থ্যসেবা, করোনা টিকাদান, রাজস্ব আদায় কার্যাবলি, বিদ্যুৎ- পানি- গ্যাস- জ্বালানি, ফায়ার সার্ভিস, টেলিফোন, ইন্টারনেট, গণমাধ্যম, বেসরকারি নিরাপত্তাব্যবস্থা, ডাকসেবা, ব্যাংক, ফার্মেসি, ফার্মাসিউটিক্যালসহ) জরুরি পণ্য-সেবার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট অফিসের কর্মচারী ও যানবাহন প্রাতিষ্ঠানিক পরিচয়পত্র প্রদর্শন সাপেক্ষে যাতায়াত করতে পারবে।

এছাড়া পণ্য পরিবহনে নিয়োজিত ট্রাক, লরি, কাভার্ড ভ্যান, কার্গো ভেসেল, বন্দরসমূহ (বিমান, সমুদ্র, নৌ, স্থল) ও সংশ্লিষ্ট অফিস নিষেধাজ্ঞার আওতাবহির্ভূত থাকবে। শিল্পকারখানা স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় চালু থাকবে। কাঁচাবাজার- নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্য সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত উন্মুক্ত স্থানে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ক্রয়-বিক্রয় করা যাবে।

খাবারের দোকান, হোটেল-রেস্তোরাঁ সকাল ৮টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত খাবার বিক্রি (অনলাইনে কেনা বা খাবার নিয়ে যাওয়া) করতে পারবে। আন্তর্জাতিক ফ্লাইট চালু থাকবে। বিদেশগামী যাত্রীরা তাঁদের আন্তর্জাতিক ভ্রমণের টিকিট প্রদর্শন করে গাড়িতে যাতায়াত করতে পারবেন।