মঙ্গলবার , ১২ কার্তিক, ১৪২৭ , ২৭ অক্টোবর, ২০২০

বীমা চুক্তির প্রয়োজনীয় উপাদানসমূহ (পর্ব-২)


Published: 2020-05-14 13:14:56 BdST

এ কে এম এহসানুল হক, এফসিআইআই: বীমা চুক্তি প্রয়োজনীয় দু’টি উপাদানের সমন্বয়ে গঠিত। সেগুলো হলো- সাধারণ চুক্তি (The Elements of General Contract) এবং বিশেষ চুক্তি (The Elements of Special Contract) । আজকের পর্বে থাকছে বিশেষ চুক্তি।

বীমা চুক্তিপত্রে বিশেষ নীতি এবং শর্তাবলী:

১। বীমাযোগ্য স্বার্থ (Insurable Interest)

২। চূড়ান্ত সদবিশ্বাস (Utmost Good Faith)

৩। ক্ষতিপূরণ (Indemnity)

৪। ক্ষতির নিকটতম কারণ (Proximate Cause)

৫। অপরের অধিকারের উত্তরাধিকারী হওয়া (Right of Subrogation)

৬। বিশেষ শর্তাবলী (Warranties)

৭। বীমা চুক্তি হস্তান্তর (Assignment and Nomination) এবং

৮। প্রিমিয়াম ফেরত (Refund of Premium)

 

বীমাযোগ্য স্বার্থ (Insurable Interest):

বীমা পলিসি ক্রয় করার জন্য বীমা বস্তুর সঙ্গে বীমাগ্রহীতার আর্থিক সম্পর্ক থাকা জরুরি বা আবশ্যক। যা আইনের চোখে স্বীকৃত বা গ্রহণযোগ্য।ৱ

চূড়ান্ত সদবিশ্বাস (Utmost Good Faith):

এই মতবাদ বীমাকারী এবং বীমাগ্রহীতা উভয় পক্ষকেই চুক্তির পূর্বালোচনা পর্যায়ে, চুক্তিপত্র সম্পাদনের সময় এবং বীমা চলাকালীন চূড়ান্ত সদবিশ্বাস প্রদর্শনের প্রয়োজনীয়তার উপর বিশেষ গুরুত্বারোপ করে থাকে।

ক্ষতিপূরণ (Indemnity):

অভিধানের ভাষায় ক্ষতিপূরণ বলতে সাধারণভাবে ক্ষতির রক্ষণ, আশ্রয় বা নিরাপত্তা প্রদান করা বুঝায়। বীমা পরিভাষায় ক্ষতিপূরণ বলতে মূলত আর্থিক ক্ষতিপূরণকে বুঝায়। বীমাকারী বীমাগ্রহীতাকে এ ক্ষতিপূরণ প্রদানে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ, যা বীমাগ্রহীতাকে ক্ষতির পূর্বাবস্থায় ফিরিয়ে আনতে সাহায্য করে। দাবির ক্ষতিপূরণ কেবল প্রকৃত ক্ষতির মধ্যেই সীমাবদ্ধ, যেখানে লাভ বা মুনাফা অর্জনের কোন সুযোগ বা অবকাশ নেই।

ক্ষতির নিকটতম কারণ (Proximate Cause):

বীমা দাবির বেলায় নিকটতম কারণ বলতে সক্রিয় বা কার্যকর কারণকে বুঝায়। যা বাইরের কোন শক্তি বা প্রভাব ছাড়া ঝুঁকি ঘটাতে সাহায্য করে।

অপরের অধিকারের উত্তরাধিকারী হওয়া (Right of Subrogation):

এই মতবাদ অনুযায়ী বীমাকারী দাবি পূরণ করার পর তৃতীয় পক্ষের (ক্ষতির জন্য দায়ি) নিকট হতে ক্ষতিপূরণের সমপরিমাণ টাকা উদ্ধার করার ক্ষমতা বা যোগ্যতা রাখে।

বিশেষ শর্তাবলী (Warranties):

বীমা চুক্তিপত্রে লিখিত বা বর্ণিত বিশেষ শর্তাবলী যা পলিসি চলাকালীন অবস্থায় বীমাগ্রহীতা পালন করতে অঙ্গীকার বা প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। এই বিশেষ শর্তাবলীতে বীমাগ্রহীতার করণীয় এবং অকরণীয় কাজের সুনির্দিষ্ট বর্ণনা থাকে।

বিশেষ শর্তাবলীর সাথে সাধারণ শর্তাবলীর পার্থক্য এই যে, বিশেষ শর্তাবলী লঙ্ঘন বা ভঙ্গ করলে বীমা চুক্তি বাতিল বলে বিবেচিত হতে পারে বা বীমাকারী দাবি অগ্রাহ্য বা প্রত্যাখ্যান করার ক্ষমতা রাখে যা সাধারণ শর্তাবলী লঙ্ঘনের বেলায় প্রযোজ্য নয়।

বীমা চুক্তি হস্তান্তর (Assignment and Nomination):

নৌ পণ্য বীমা এবং জীবন বীমা সহজেই হস্তান্তরযোগ্য। নৌ পণ্য বীমা ক্ষতির পূর্বাবস্থা বা ক্ষতির পরবর্তী অবস্থায় হস্তান্তর করা সম্ভব। কিন্তু অগ্নি বীমা বীমাকারীর পূর্ব অনুমোদন বা অনুমতি ছাড়া হস্তান্তর করা সম্ভব নয়।

প্রিমিয়াম ফেরত (Refund of Premium):

সাধারণত প্রিমিয়াম ফেরতযোগ্য নয়। তবে নিম্নলিখিত কারণে প্রিমিয়াম ফেরত দো যেতে পারে।

ক) বীমা চুক্তিপত্রের শর্তানুযায়ী এবং

খ) ন্যায়পরায়ণতার কারণে।

লেখক: জেনারেল সেক্রেটারি, বাংলাদেশ ইন্স্যুরেন্স প্রফেশনালস সোসাইটি (বিআইপিএস) ।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

সম্পাদক ও প্রকাশক
মোস্তাফিজুর রহমান টুংকু সম্পাদকীয় কার্যালয়
৫৩ মডার্ন ম্যানসন, মতিঝিল সি/এ, লেভেল # ১১, স্যুট # ৬, ঢাকা-১০০০।
ফোন: ০২ ৯৫১৪৮৭২, ইমেইল: insurancenewsbd@gmail.com